parallax background

ঘরভর্তি রঙয়ের ঘোর!

By Sadia Islam

মানুষ ঘর ভালোবাসে। ঘর শুধু একটা ছাদ আর কয়েকটা দেয়াল নয়। ঘর একজন মানুষের স্বপ্নের ছোট্ট একটা অংশ। রঙ মেখে যে স্বপ্নকে শুধু রঙিন নয়, অসাধারণ কিছুতেও বদলে ফেলতে পারেন আপনি। ঘর দেখে কেউ ‘বাহ! কী সুন্দর” বলার বদলে যেন অবাক হয়ে থমকে যায়, এমনটাই তো হওয়া উচিৎ, তাই না? রঙয়ের কিছু সাধারণ ব্যবহার বদলে দিতে পারে আপনার চিরাচরিত ঘরকে। বিশেষ করে, এক্ষেত্রে ইল্যুশন বা চোখের ধাঁধা রাতারাতিই ফেলতে পারে জাদুকরী প্রভাব। চলুন, রঙয়ের মাধ্যমে আপনার পরিচিত ঘরটিকে নতুনত্ব দেওয়ার মতো দারুণ কিছু ইল্যুশন আইডিয়া দেখে নেওয়া যাক!

রঙ বদলে দিতে পারে আপনার পরিচিত ঘরটিকে, পুরোপুরি!

রঙটা কেমন, হালকা?

ছোট্ট একটা ঘর আপনার? ঘরের দেয়ালে ব্যবহার করা রঙ কিন্তু দেয়ালকে শুধু রঙিন করে না, একইসাথে ছোট-বড়ও করে তোলে। তাই, আপনার ছোটখাটো ঘরটিকেই হালকা রঙ, এই যেমন- সাদা বা গোলাপী ব্যবহার করে বড় করে তুলতে পারেন আপনি। এতে করে ঘরের আকৃতি হয়তো বাড়বে বা কমবে না। তবে দেখতে বেশ বড় মনে হবে ঘরটিকে। ঠিক একইভাবে, গাঢ় রঙ ব্যবহার করে বিশাল একটা ঘরকেও দেখতে কিছুটা ছোট করে তুলতে পারেন আপনি।

ঘরটা বেশি উঁচু!

উঁচু ছাদকে নিচু দেখাতে ব্যবহার করুন গার রঙ!

অনেকসময় ছাদ একটু উঁচু হওয়ায় ঘরকে দেখতে অনেক বেশি বড় মনে হয়। শুনতে ভালো লাগলেও, বিশাল উঁচু ছাদের দিকে তাকানোটা কিন্তু মোটেও ভালো লাগার মতো নয়। ছাদ আর মেঝের এই দূরত্বকে কিছুটা হলেও কমিয়ে আনতে আপনি গাঢ় রঙ ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে এক নজরে বেশ কম দূরত্বের মনে হবে আপনার ঘরকে।

উহু, ঘরের ছাদটা বেশি নীচু

ঘরের ছাদ যদি বেশি উঁচু হয়ে থাকতে পারে, তাহলে নিচু কেন নয়? তবে এই সমস্যারও আছে সমাধান। সিলিং নিচু হলে সেটাকে ঠিকঠাক পর্যায়ে আনতে দেয়ালে গাঢ় রঙ, এবং ছাদে হালকা রঙ ব্যবহার করুন। মনে হবে, হুট করেই যেন লাফ দিয়ে একটু উপরে উঠে গেছে ছাদটা। দেয়ালে লম্বাকৃতির নকশাও ব্যবহার করতে পারেন। লম্বাকৃতির রেখা শুধু মানুষকেই নয়, ঘরকেও লম্বা করে তুলতে পারে!

সরু গলির গল্প

সরু গলিই চওড়া হোক!

এক ঘর থেকে অন্য ঘরে যেতে হলে মাঝখানে একটু সরু গলি তো পড়েই যায়। আর তাছাড়া, বাথরুম, রান্নাঘর আর বারান্দার ক্ষেত্রেও একটু জায়গাটা যেন একটু কমই মনে হয়। কী করবেন এসময়? খুল মলিন আর হালকা রঙ ব্যবহার করুন দেয়ালে। তবে সামনে কোন দরজা থাকলে সেটার ব্যবহার করুন গাঢ় রঙ। গাঢ় আর হালকা রঙ ব্যবহার করে আড়াআড়ি ভাবেও রঙ করতে পারেন আপনি। এতে করে ছোট্ট আর সরু জায়গাটা আর অতটা সরু মনে হবে না!

ভিন্ন ঘর, ভিন্ন পৃথিবী

ঘরকে বড়, ছোট, উঁচু আর নিচু করার উপায় তো জানা গেল। তবে ইল্যুশন ব্যাপারটা কিন্তু এটুকুই নয়। আপনি ইন্টেরিয়র ডিজাইনের সময় রঙ ব্যবহার করে চোখের ধাঁধাও লাগাতে পারেন। ভিন্ন ভিন্ন ঘরের জন্য আলাদা থিমও ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে, কোন ঘরে সমুদ্র আর কোন ঘরে বনের ছোঁয়া পাবেন আপনি!

একেকটা ঘরে একেকটা জগত বানিয়ে নিন

ঘরে রঙ করলেই হয়? উঁহু! রঙ হতে হয় রঙয়ের মতো। নিজের ভালোবাসার ঘরটিকে রাঙানোর জন্য একটু বেশিই না হয় ভাবলেন। দিনশেষে ঘরে ফিরে গিয়ে যেন মন ভালো হয়ে যায় আপনার, এমন করেই না হয় সাজিয়ে তুলুন নিজের ঘরটিকে!

  •  
  •  
  •  
  •   

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *