parallax background

পুরনো বাড়িকে নতুন করে তুলুন ইলিউশনে

by Tasnim Jarin

ঘরের দেয়ালের রঙটা দেখতে আগের মতো আর ভালো লাগছে না? কেমন যেন মলিন হয়ে আছে ঘরের চারপাশ, আর সেই সাথে মনটাও? লকডাউন পরবর্তী সময়ে আগের মতো নেই কোন কিছুই। আমাদের প্রতিদিনের অভ্যাস, চলাফেরা আর জীবন সংগ্রামে এখন যোগ হয়েছে অনেক নিয়মকানুন আর সতর্কতা। এসব সতর্কতা অবশ্য আমাদের নিজেদের সুরক্ষা এবং সচেতনতার জন্যই নেয়া হচ্ছে। যেন আমরা সবাই আরেকটু বেশি ভালো থাকতে পারি, নিজের সাথে সাথে অন্যকেও সুস্থও রাখতে পারি।

আমাদের পুরনো জীবনধারায় এখন ‘নিউ নরমাল’ হয়ে যুক্ত হয়েছে নতুন কিছু সল্যুশন। মাস্কিং এবং স্যানিটাইজিং যেমন আমাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য প্রয়োজন, তেমনি ঘরের দেয়ালের বিবর্ণ রঙ আর পুরনো দাগ এর একটা সল্যুশন বের করারও যে এখন উপযুক্ত সময়। পুরনোকে বিদায় দিয়ে ঘরের দেয়াল এবার পরিচিত হোক এক নতুন রূপে। আর এই নতুনত্বের যাত্রায় বার্জার ইলিউশনে থাকছে নতুন কিছু ডিজাইন, যা পুরনো দেয়ালে এনে দিবে নতুনত্বের ছোঁয়া।

শুরুটা ড্রইং রুমের দেয়াল দিয়েই না হয় করা যাক। বাসার এই ঘরটিতে যেহেতু অতিথিদের আনাগোনা সবচেয়ে বেশি হয়, তাই গতানুগতিক ধারায় সাজানো ড্রইংরুমকে নতুন করে  সাজাতে বেছে নিতে পারেন বার্জারের দারুণ কিছু ইলিউশন। নকশার ডিজাইনে করা এই ইলিউশনের সাথে সাদা রঙের কম্বিনেশন যেন রুমকে আরও আর্টিস্টিক করে তুলবে। সাথে সাদা রঙে করা কোন পেইন্টিং আর দেয়ালের কর্নারে থাকা সবুজের ছোঁয়া রুমের সৌন্দর্যই বাড়িয়ে দিবে। 

যারা এ ধরনের ইলিউশন প্যাটার্ন পছন্দ করেন, তাদের জন্য আরও থাকছে কালার কিউব এবং পুষ্পিতা ইলিউশন। কালার কিউব রুমে অনেকটা রংধনুর ভাইব এনে দিবে। আকাশে রংধনুর দেখা না মিললেও আপনার দেয়াল জুড়ে এখন সবসময়ই থাকবে রংধনুর ছোঁয়া। এছাড়া যারা ফ্লোরাল ডিজাইন পছন্দ করেন তাঁদের জন্য পুষ্পিতা তো থাকছেই।

ফ্লোরাল কিংবা জ্যামাতিক প্যাটার্নের বাইরে ইলিউশনের তালিকায় নতুন করে যুক্ত হওয়া লোকজ ডিজাইনটি বেশ ইউনিক। আপনার বাসার ড্রইংরুমটি যদি আকৃতিতে বড় হয়ে থাকে, তবে হোম থিয়েটার কিংবা এলসিডি টিভি সেট আপের দেয়ালটি হতে পারে লোকজ এর ডিজাইনে। যেহেতু ইলিউশনের প্যাটার্নে রয়েছে উজ্জ্বল কিছু রঙ তাই পর্দা এবং রুমের বাকি অংশের জন্য সাদা রঙের ব্যবহার মানাবে বেশ। আর সাথে কাঠের ডিজাইনের আসবাব হলে তো কথাই নেই!

এছাড়া ড্রইং রুম কিংবা লিভিং রুমে কিছুটা ক্ল্যাসিক ভাব আনতে চাইলে অ্যাকুয়া ফোম কিংবা রিপলস হবে দারুণ এক চয়েস। মডার্ন সেট আপ এর ক্ষেত্রেও এই দুইটি ইলিউশন বেশ মানিয়ে যাবে। এক্ষেত্রে মডিউলার সোফা কিংবা ক্ল্যাসিক রাউন্ড আর্ম সোফা আর সাথে গোল্ডেন ট্রি এবং কর্নার ল্যাম্পে পুরো রুমের চেহারাই একদম পাল্টে যাবে।

তবে আপনার পছন্দ যদি হয়ে থাকে ধূসর কিংবা সাদা-কালো প্যাটার্ন, সেক্ষেত্রে স্ট্রিং অথবা মেটালিক স্পার্ক ধরনের ইলিউশনও বেছে নিতে পারেন লিভিং রুম কিংবা বেড রুমের ক্ষেত্রে। অথবা আপনি চাইলে কালার প্যালেটস থেকে ভিন্ন কোন রঙ বেছে নিয়েও তার উপর এই ইলিউশন প্যাটার্ন করে নিতে পারবেন।

শোবার ঘরের ইলিউশন প্যাটার্নের ক্ষেত্রে বার্জারের আছে বুটিক, বক্রবিথির মতো ইউনিক কিছু প্যাটার্ন। আপনার পছন্দ যদি একটু ম্যাট ধরনের হয়ে থাকে, সিম্পল কিন্তু স্টাইলিশ ডিজাইনের ক্ষেত্রে বক্রবিথি হবে পারফেক্ট চয়েস। আর বেশি কিছু কালার প্যালেট তো থাকছেই, শোবার ঘরের ছিমছাম আর স্নিগ্ধতা ধরে রাখতে ম্যাট ধাঁচের এই ইলিউশন দেয়ালের জন্য পারফেক্ট সল্যুশন।

তবে উজ্জ্বল রঙ আর পার্টি মুড অন রাখতে চাইলেও বার্জারের তালিকায় আছে কালারফুল ইলিউশন স্টক। সী গ্রিন, লাইট অরেঞ্জ কিংবা পার্পেল রঙে রুমের একটি নির্দিষ্ট দেয়াল এবার থাকবে উজ্জ্বল সবসময়। এক্ষেত্রে বুটিক কিংবা সেঞ্চুরি ডিজাইন, বেছে নিতে পারেন পছন্দের যেকোনো ইলিউশন প্যাটার্ন।

দেয়াল রাঙাতে যাদের পছন্দ সাদা রঙ, তাঁদের জন্য নতুন গোল্ডেন এবং সিলভার ব্লোজম এর এই দুইটি ইলিউশন প্যাটার্নের কথা না বললেই নয়। পুরো প্যাটার্ন জুড়ে যেন ব্যক্তিত্বের এক দারুণ বহিঃপ্রকাশ হচ্ছে এই ইলিউশনের মধ্য দিয়ে। আর এর কালার প্যালেট গুলো এত ইউনিক যে পুরনো দেয়ালে বসন্তের আনাগোনা থাকবে সারা বছর জুড়ে।

ডাইনিং রুমের জন্য রঙটা হওয়া চাই কিছুটা গাঢ় রঙের। সেক্ষেত্রে ফুল, লতাপাতার কিংবা গাছের প্যাটার্ন মানাবে বেশ। যেন কোন এক বাঁশঝাড়ের পাশেই বসে আছেন আপনি। মানে প্রকৃতির দারুণ এক ভাইব পাওয়া যাবে এই প্যাটার্ন থেকে। এর সাথে কাঠের আসবাব আর বাদামী, সোনালি কিংবা অফ হোয়াইট রঙের পর্দাও মানাবে বেশ।

তবে বাচ্চাদের রুমটা হওয়া চাই বিশেষ। রঙিন শৈশবের প্রতিটি মুহূর্তই যেন হয় স্বপ্নবিভোর এবং উজ্জ্বল। আর তাই তো বার্জার পেইন্ট তাঁদের ইলিউশনের প্যাটার্নে এনেছে কালারফুল কিছু ডিজাইন। রংধনু রঙের এই প্যাটার্নগুলো শৈশবের দিনগুলোকে করে তুলবে আরও রঙিন।  

ঘরের দেয়াল রাঙাতে বার্জার এক্সপেরিয়েন্স জোন নিয়ে এসেছে সেইফ পেইন্টিং সার্ভিস। নিশ্চিতভাবেই আপনি নির্ভর করতে পারেন বার্জার পেইন্ট সার্ভিসিং টিমের উপর। এমন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে পুনরায় বাড়ি রঙ করাতে তাই আর থাকছে না কোন সংশয়। কারণ বার্জার সেইফ পেইন্টিং সার্ভিস সুরক্ষার ৬ টি ধাপ মেনে রঙিন করবে আপনার বাড়ি। গতানুগতিক রঙের ধারা পাল্টে আপনার প্রতিদিনের জীবনকে আরও রঙিন করে তুলতে বার্জার এক্সপেরিয়েন্স জোন টিম নিত্যনতুন ইলিউশন প্যাটার্নে আপনার ঘরকে করে তুলবে প্রাণবন্ত এবং উজ্জ্বল। তবে আর দেরি কেন? বার্জার এক্সপেরিয়েন্স জোনের সাথে নিশ্চিন্তে বাড়ি রাঙাতে ফ্রি কল করুন রঙ নাম্বারে: ০৮০০০-১২৩৪৫৬।

  •  
  •  
  •  
  •   

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *