parallax background

বাহারি ফ্লোর ম্যাটস-এ ঘর হোক রঙিন!

by Sadia Islam Bristi

ঘর সাজানোর অনেকটা অংশ জুড়ে থাকে ঘরের মেঝে। ঝকঝকে আর দারুণভাবে সাজিয়ে তোলা একটি ঘরের পুরো আবহই নষ্ট হয়ে যায় বেমানান মেঝের কারণে। আর ঘরের মেঝেকে সুন্দর আর রঙিন করে তোলার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি উপাদান হলো ফ্লোর ম্যাট।

বাজারে নানারকম, নানা রঙয়ের, নানা ঢঙয়ের ফ্লোর ম্যাট কিনতে পাওয়া যায়। কিন্তু কেনাকাটা ছাড়াও ফ্লোর ম্যাটের মাধ্যমে ঘরের মেঝেকে সুন্দর করে তুলতে প্রয়োজন সঠিক পরিকল্পনা। কোথায় কোন ফ্লোর ম্যাট বা মাদুর রাখবেন, কোন রঙ বা কেমন আকৃতির ফ্লোর ম্যাট কোথায় মানাবে- এই সব বিস্তারিত তথ্য নিয়েই আমাদের আজকের এই আয়োজন!

ফ্লোর ম্যাটের রকম

ঘরের ভেতরে ও বাইরে ব্যবহার করার জন্য ভিন্ন ভিন্ন ফ্লোর ম্যাট রয়েছে। ইনডোর ও আউটডোর ম্যাটের ক্ষেত্রে সাধারণ কিছু ব্যাপার খেয়াল করতে হবে আপনাকে। আর এই ব্যাপারগুলো হলো ম্যাটের উপাদান ও বুনোট পদ্ধতি।

এই যেমন- ঘরের বাইরে ব্যবহার করতে হয় এমন ম্যাটের ক্ষেত্রে তাতে রাবার আছে কিনা তা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। বিশেষত আউটডোর ম্যাট হিসেবে সবার প্রথম পছন্দই থাকে রাবার বা কোয়ের ম্যাট।

অন্যদিকে, ঘরের ভেতরে ব্যবহারের জন্য কাপড় বা সুতো দিয়ে তৈরি রাবার ম্যাটকেই প্রাধান্য দেওয়া উচিত। এই ম্যাট খুব সহজেই মানুষের পায়ের ময়লাকে আলাদা করতে পারে এবং মেঝেকেও পরিষ্কার রাখে। এছাড়াও এক্ষেত্রে আবহাওয়ার সাথে সহজেই খাপ খেয়ে যায় বা ওয়েদারপ্রুফ ম্যাটকে বাছাই করতে পারেন আপনি।

কোন ঘরের জন্য কেমন ম্যাট?

এতক্ষণ তো ফ্লোর ম্যাটের রকম এবং কোন উপাদানে তৈরি ফ্লোর ম্যাট কোথায় রাখা ভালো সেটা বলা হলো। তবে এছাড়াও ঘরভেদেও ফ্লোর ম্যাটের অবস্থান বদলায়। চলুন, আপনার ঘরের সৌন্দর্য বর্ধনে কোথায় কোন ফ্লোর ম্যাট রাখবেন তা জেনে নেওয়া যাক।

প্রধান দরজার বাইরে

বর্তমান সময়ের বেশিরভাব ঘরেই বসার ঘরে প্রবেশ করার দরজাটিই হয় প্রধান দরজা। সেক্ষেত্রে ঘরে প্রবেশ করার আগে আপনি নিশ্চয় চাইবেন আপনার অতিথির জুতো ও পায়ে লেগে থাকা ধুলোবালি দূর হয়ে যাক। সেক্ষেত্রে একটু ভারি বা রাবার আছে এমন ম্যাট ব্যবহার করুন। এজন্য আপনি যেকোনো আকারের ম্যাট ব্যবহার করতে পারেন। ঘরে প্রবেশের পূর্বে ডোর ম্যাটটি আপনার ব্যক্তিত্বের পরিচয় দেবে। তাই সেখানে ‘স্বাগতম’ বা ইতিবাচক কিছু লেখা রয়েছে কিনা সেটাও খেয়াল রাখুন।

শোবার ঘর

শোবার ঘরের পুরোটা জুড়েই ইচ্ছে হলে ম্যাট ব্যবহার করতে পারেন আপনি। এছাড়া শুধু খাটের সামনেও বাহারি ম্যাট রাখতে পারেন। তবে যদি আপনি সারা ঘরে ম্যাট ব্যবহার করে তারপর বিছানার পাশেও আলাদা করে ফ্লোর ম্যাট রাখতে চান, সেক্ষেত্রে দ্বিতীয় ম্যাটটির বেলায় উজ্জ্বল রঙ বেছে নিন।

বসার ঘর

ঘরের বাইরেই একটা ম্যাট আছে বটে। তারপরও বাড়তি সাবধানতার জন্য এবং মেঝে পরিষ্কার রাখতে দরজার এপাশে বসার ঘরে আরেকটি ম্যাট ব্যবহার করুন। একটু রঙচঙে এই ফ্লোর ম্যাট আপনার ঘরটিকেও সাজিয়ে তুলবে। এছাড়া বসার ঘরের টেবিলের নিচে একটি মাঝারি আকৃতির ম্যাট রাখতে পারেন আপনি।

অনেকেই বসার ঘরে টেলিভিশন রাখতে পছন্দ করেন। আপনার ঘরটিও কি ঠিক এমন? সেক্ষেত্রে টেবিল না থাকলেও চেয়ার বা সোফার সামনে ফাঁকা স্থানটিতেই রঙিন একটা ফ্লোর ম্যাট বিছিয়ে নিন।

রান্নাঘর

তেল, গরম আর পানি মিলিয়ে রান্নাঘর অনেকসময় বিপদজনক স্থান হয়ে উঠতে পারে। মেঝে যেন পিচ্ছিল না হয় তা নিশ্চিত করতে এজন্য রান্নাঘরে ফ্লোর ম্যাট রাখতে পারেন আপনি। আপনার রান্নাঘর কতটুকু বড় তার উপরে ফ্লোর ম্যাটের আকৃতি নির্ভর করবে।

বাথরুম

বাথরুমের দরজার এপাশে একটি কাপড়ের তৈরি ফ্লোর ম্যাট রাখুন। এটি ঘরকে পরিচ্ছন্ন থাকতে সাহায্য করবে। কাপড় বা উল দিয়ে তৈরি ম্যাট এক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন আপনি। এছাড়া বাথরুমে বাথটাব থাকলে সেটার পাশেও একটি ফ্লোর ম্যাট রাখতে পারেন।

ঘর সাজাতে ম্যাট

হয়তো অন্য কোন কাজেই দরকার হচ্ছে না। তারপরও শুধু ঘরকে সাজিয়ে তুলতেই দারুণ সব ডিজাইনের ফ্লোর ম্যাট ব্যবহার করতে পারেন আপনি ঘরের বিভিন্ন স্থানে। সেটা যেমন হতে পারে বিশাল কোন এক শোপিসের নিচে, তেমনি ফাঁকা কোন স্থানে, মেঝের উপরেও। তবে এক্ষেত্রে মেঝেকে ঢেকে ফেলাটাই মূল উদ্দেশ্য নয়। বরং যতটা সম্ভব একে সাজিয়ে তুলুন!

হালকা রঙ, না গাঢ়?

ফ্লোর ম্যাট যেমন হালকা রঙয়ের হয়, তেমনি হয় গাঢ় রঙয়েরও! আপনি আপনার ঘরের জন্য কোন রঙয়ের ফ্লোর ম্যাটটি বাছবেন? এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করতে পারে ঘরের দেয়াল। দেয়ালের রঙ যদি হালকা হয় সেক্ষেত্রে ঘরে গাঢ় রঙয়ের ফ্লোর ম্যাট ব্যবহার করুন। এতে করে ঘরের ভেতরে থাকা একঘেয়েমি দূর হয়ে যাবে।

আবহাওয়া ভেদে ফ্লোর ম্যাট

গরম কালে ফ্লোরে একটু পাতলা আর হালকা ফ্লোর ম্যাটই আরামদায়ক হয়। কিন্তু শীতকালে একটু ভারী ও নরম ফ্লোর ম্যাট ব্যবহার করলে ঠাণ্ডা কমে এবং ঘর আরামদায়ক হয়।

পুরো ঘরকে সাজিয়ে তুলছেন যখন, মেঝেটাই বা বাদ থাকবে কেন? তাই এখুনি আপনার পছন্দের ফ্লোর ম্যাটগুলো কিনে ফেলুন আর ব্যবহার করুন ঘরের পছন্দনীয় স্থানে!

  •  
  •  
  •  
  •   

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *