parallax background

প্রকৃতির ইলিউশনস দেয়ালে

By Kazi Sadia Islam Roza

আপনার একান্ত প্রিয় এবং ব্যক্তিগত যায়গা আপনার নিজের ঘর। ছোট্ট পাখির নীড়ের মত বা সমুদ্রের বিশালতার টুকরো অনুভুতির মত আপনার ঘর একান্তই আপনার। জীবনের সব থেকে ব্যক্তিগত, সুন্দর মুহূর্তের সাক্ষী আপনার ঘর।  ঘর-কে সাজাতে আমাদের আয়জনের শেষ নেই, যে যেভাবে পারি নিজের শৈল্পিক সত্ত্বা-কে ঘরের ছোট ছোট কোণায় ছড়িয়ে দেই আমরা। শহরের যান্ত্রিকতায় কোথাও নেই সবুজ, খোলা বিশাল আকাশের অংশ বা টুকরো প্রকৃতির ছোঁয়া। আপনার ঘরটা তাই আপনার মনের ক্যানভাস হয়ে উঠতে পারে, দেয়ালের নানা অংশে আপনি চাইলে নামিয়ে আনতে পারেন আকাশ, সূর্যাস্ত বা সমুদ্রের ঢেউ। প্রকৃতির নানা ইলিউশনসে ঘরের দেয়াল সাজানোর জন্যেই এই আয়োজনঃ 

সমুদ্র নাকি পাহাড়

প্রায়ই এই প্রশ্নটির সম্মুখীন হই আমরা । সমুদ্র প্রিয় হলে বুঝি পাহাড় ভালো লাগে না, নাকি আকাশের কাছাকাছি যাওয়া যায় দেখে আর সমুদ্র-কে ছুঁতে ইচ্ছা করবে না?  এই প্রশ্নের উত্তর একান্তই আপনার ব্যক্তিগত পছন্দের তবে নিজের শোবার ঘরে ‘সমুদ্রের ঢেউ’ বা পাহাড় ছোঁয়া আকাশের ইলিউশন কিন্তু দারুন সুন্দর লাগে। সবুজ ছোঁয়া’র পাহাড়-কে ফুটিয়ে তুলতে সবুজের স্কিমের নানা শেইড ব্যবহার করা যেতে পারে, আকাশের রঙটাও হবে আপনার মন মত আকাশী, গাড় নীল বা মেঘময়। 

সমুদ্র-কে ফুটিয়ে তুলতেও নীলের শেডের অভাব নেই, একই ঢেউ-কে নানা ভাবে উপস্থাপন করা যায় পছন্দ মত। দুটো ব্যাপারেই ঘরের অন্যান্য দেয়ালের রঙ-কে গুরুত্ব দিতে হবে আলাদা করে। এক দেয়ালে ইলিউশনস করলে অন্য দেয়ালগুলো যেনো কম্পোজিশন-কে প্রতিষ্ঠিত করে, রঙ বাছাই-এর ক্ষেত্রে সেটা খেয়াল রাখা জরুরী। 

পাতা ঝরা দিন এবং বসন্তের স্নিগ্ধতাঃ 

ঝরে যাওয়া পাতার মাঝে মন খারাপের খানিক সুর আছে আর আছে নতুন সবুজের আগমনের বার্তাও। লাল-হলুদ- খয়েরীর কম্বিনেশনের পাতা ঝরার  ইলিউশনস তাই সহজেই কমপ্লিমেন্ট করতে পারে আপনার বসার ঘরকে।  আবার দিন শেষে ঘরে ঢুকে খানিকটা সবুজের ছোঁয়া পেতে অরন্যের সবুজ ছোঁয়াতেও সাজিয়ে তুলতে পারেন সোফার পিছের দেয়াল। দুই ক্ষেত্রেই ব্যবহার হতে পারে প্রধান রঙ গুলোর নানা স্কিম আর কম্বিনেশন। 

গোলাপে মুগ্ধতা বা কাশফুলের স্নিগ্ধতাঃ 

আপনার প্রিয় ফুল হতে পারে আপনার দেয়ালের বিশেষ আকর্ষণ। একটি কর্নারে ছোট করে আঁকিয়ে তুলুন আপনার পছন্দের ফুল। স্টাডি কর্নার হলে সেখানে দরকার পর্যান্ত আলো তাই রঙের ক্ষেত্রে সেই ব্যপারটি খেয়াল রাখতে হবে বিশেষ ভাবে। দেয়ালকে কমপ্লিমেন্ট করতে খেয়াল রাখতে হবে ফ্লোরের দিকেও, আলাদা করে বাছাই করা কোন কার্পেট বা ম্যাট  আপনার স্টাডি কর্নার-কে নিজস্ব একটি  স্বত্বা দিবে। 

প্রিয় পেইন্টিং থেকে ইলিউশনসঃ 

স্টারি নাইটস থেকে শুরু করে অন্যান্য অনেক বিখ্যাত শিল্পীর নানা প্রাকৃতিক ইলিউশনস বাড়াতে পারে আপনার দেয়ালের শোভা। আপনার শৈল্পিক রুচি’র পরিচয়টাও খুব দারুণ ভাবেই দেবে এইসব পেইন্টিংস। প্রকৃতি’র সাথে আপনার আত্মিক যোগাযোগটাও ঘটবে, সাথে সাথে ঘরে-কে দেখতে পাবেন অন্য কোন চোখে। এতে আলাদা করে দেয়ালে পেইন্টিংসের দরকার পড়বে না, ঘরের আলোর ফোকাল পয়েন্ট খেয়াল করে দিলে, ঘর দেখাবে আরো অনেক বেশি আকর্ষনীয়। 

ইলিউশনস দিয়ে দেওয়াল সাজানোটা আপনার রুচি, পছন্দ ও সাধ্যের উপর সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভরশীল। তবে রঙ বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সচেতন হলে দেয়ালে নানা কঠিন ইলিউশনস-ও সহজে ফুটিয়ে তোলা যায়। নিজের পছন্দকে জিজ্ঞেস করুন আর ঠিক করে নিন প্রকৃতির কোন অংশটি আপনি নিজের একান্ত আপন কোন দেয়ালে আঁকিয়ে তুলতে চান।  

  •  
  •  
  •  
  •   

3 Comments

  1. MuhammadSharefulIslam says:

    আমি আমার দেয়ালে করতে চা। ১২৫০ স্কয়ার ফিট আনুমানিকখরচ কত হ?

  2. KAZI MOHAMMAD FAISAL says:

    Good idea and artistic thinking can make the home more exciting…

  3. Rafsan says:

    I need it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *