parallax background

দেয়াল জুড়ে যেন বসন্তের ছোঁয়া

By Tasnim Jarin

বাতাসে বহিছে প্রেম, নয়নে লাগিল নেশা,
কারা যে ডাকিল পিছে,
বসন্ত এসে গেছে”
 

বসন্ত কিংবা ফাল্গুন যাই বলি না কেন, শীতের রুক্ষতা আর বিমর্ষভাব কাটিয়ে উঠতে ঋতুর এই পালাবদল যেন এক আশীর্বাদ হয়ে আসে প্রকৃতিতে। ধূসরতার চাদরে জড়িয়ে থাকা প্রকৃতি যেন মুহূর্তেই এক রঙিন বেশে আবির্ভাব ঘটে। কৃষ্ণচূড়া থেকে শুরু করে সোনালু, পলাশ, শিমুল, কাঁঠালচাঁপা, কাঠগোলাপ- কী নেই প্রকৃতির ঝুড়িতে! চারিদিকে যেন রঙের মেলা, আর সেই রঙের মেলায় রানীর বেশে প্রকৃতির রাজত্ব যেন দেখবার মতো!

ফাল্গুনে প্রকৃতির এই রঙ যে শুধু ফুল, পাখি কিংবা আকাশের মাঝেই সীমিত থাকে, তা কিন্তু নয়। প্রকৃতির সাথে সাথে পরিবর্তন আসে আমাদের অর্থাৎ, মানুষের পোশাক, সাজ এমনকি অন্দরমহলেও। বসন্তের ছোঁয়ায় রঙের উপস্থাপন হয় সর্বত্র। দেয়াল থেকে শুরু করে পর্দা, কুশন কভার থেকে শুরু করে ফুলের ডেকোরেশন সবকিছুতেই নতুনত্ব আর সতেজতার ছোঁয়া চারিদিকে এক শুভ সূচনার আহ্বান জানান দেয়।

আর এই নতুনত্বের প্রকাশ ঘটাতে নিত্যনতুন সব ডিজাইন, আর্ট আর আইডিয়া নিয়ে আমরা হয়ে উঠি ব্যস্ত। কোন রঙে দেয়াল সাজালে তা দেখতে আরও সুন্দর দেখাবে, কিংবা দেয়ালের কোন রঙের সাথে কী রঙের পর্দায় রুমটি মানিয়ে যাবে বেশ, মডার্ন-ক্ল্যাসিক-নাকি এথনিক; কোন ধরনের ফার্নিচার অন্দরমহলের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিবে দ্বিগুণ, এমনটাই হিসাবনিকেশে আমরা চিন্তিত হয়ে পড়ি।

তো সেসব চিন্তাকে প্রাধান্য দিয়ে আর আসছে ফাল্গুনকে বিবেচনায় রেখে ঘরের দেয়ালগুলোতে কীভাবে নতুনত্বের প্রকাশ ঘটানো যায়, তারই কিছু বিস্তারিত রইলো এই আয়োজনে।

যেহেতু কনকনে এই শীতে ঘরের দেয়ালগুলোতে তেমন কোনো কাজ করা হয়নি, তাই বসন্তের আগমনে দেয়ালগুলোর চেহারা পাল্টে দেওয়ার ভাবনাটা কিন্তু মন্দ নয়! আর যেহেতু সময়টা হরেক রঙের ফুলের তাই দেয়ালগুলোতেও ফুলের ছোঁয়া থাকলে দেখতে কিন্তু বেশ লাগবে। মনে হবে, প্রকৃতি স্বয়ং যেন আপনার ঘরের দেয়ালে দেয়ালে তার সৌন্দর্য এঁকে দিয়ে গেছে। এক্ষেত্রে দেয়ালগুলোতে কোন একক রঙ না দিয়ে, সেই রঙের উপর যদি থাকে কোন ইল্যুশন, তবে প্রকৃতির মতো আপনার ঘরও হয়ে উঠবে প্রাণবন্ত এবং রঙিন।

ইল্যুশন এর ডিজাইন হওয়া চাই ফ্লোরাল মোটিফ থিমে। অর্থাৎ, এক রঙের পেইন্ট এর উপর পছন্দমতো ফুলের একটা প্যাটার্ন, অ্যামবুশ কিংবা কোন ফিচার। সাধারণত ন্যাচারাল বা ফ্লোরাল মোটিফ থিম ঘরের সব দেয়ালেই মানিয়ে যায়। রুম ভেদে দেয়ালে রঙের ভিন্নতা এক্ষেত্রে একটি বড় বিষয়।

ঘরে ফ্লোরাল থিমের ইল্যুশন

শুরুটা বসার ঘর দিয়েই করি। ঘরের এই অংশটায় সবার আনাগোনা থাকে। বসার ঘরের দেয়ালে ক্রিম রঙের পেইন্টে কৃষ্ণচূড়ার ইল্যুশন হতে পারে দারুণ এক ডিজাইন। দেখলে মনে হবে যেন আপনি কৃষ্ণচূড়ার কোন বাগানে বসে আছেন। দেয়ালের কোন একটি নির্দিষ্ট দিকে দেয়ালের নিচ থেকে উপর পর্যন্ত চলে যাবে কৃষ্ণচূড়ার গাছের এই প্যাটার্ন। উপরের দিকে গিয়ে গাছটি ছড়িয়ে যাবে, আর দেয়ালের এই অংশটির ঠিক নিচেই থাকবে একটি ইজি চেয়ার। পুরো ঘরটি জুড়ে থাকবে কাঠের আসবাবপত্র, তাতে কৃষ্ণচূড়া রঙের সাথে সাদা নেটের পর্দা। চোখ বন্ধ করে একবার ভাবুন তো, কি দারুণ দেখাচ্ছে, তাই না?

এবার আসি শোবার ঘরের কথায়, এই রুমের দেয়ালে থাকা চাই স্নিগ্ধতার ছোঁয়া। আর এই স্নিগ্ধতা ছড়াতে সোনালু ফুলের অ্যামবুশ ইল্যুশন প্যাটার্ন, কাঠগোলাপের প্যাটার্ন কিংবা ঘাসফুল হতে পারে সুন্দর সমাধান। আর ফার্নিচারের ক্ষেত্রে ল্যাকার রঙের ছিমছাম যেকোনো কিছুই ভালো মানাবে। যেহেতু শোবার ঘর, তাই পর্দার রঙের জন্য বেছে নিতে পারেন গাঢ় কোন কন্ট্রাস্ট রঙ। আর দেয়ালের এক কোণে পরিবারের সবার সাথে তোলা সুন্দর কিছু মুহূর্তের ছবি, ব্যাস আর কী লাগে!

খাবার ঘরের দেয়ালের জন্য ফ্লোরাল মোটিফ হতে পারে স্ট্রাইপের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের পাতার সমাহার কিংবা ছোট থেকে বড় ফুলের কোন প্যাটার্ন কিংবা ফুলের মাঝে প্রজাপতির কোন মোটিফ। যেহেতু দিনে অন্তত তিনবার পরিবারের সবার সাথে এই রুমে আড্ডায় গল্পে আহার করার ফাঁকে সময় কাটানো হয়, তাই রুমের দেয়ালটাও যে হওয়া চাই একদম মনের মতো। রুমের কোণে একটা ট্রলি আর দেয়াল জুড়ে আয়না আর পুরাতন বড় একটা ঘড়ি রুমে এনে দিবে উজ্জ্বলতা।   

ফাল্গুনে প্রকৃতির এই রঙ যে এখন আপনার ঘর জুড়ে। কেননা, ফ্লোরাল মোটিফে আপনার অন্দরের সৌন্দর্য বাড়াতে বার্জার যখন পাশেই আছে, তখন আর চিন্তা কিসের? বার্জার ইল্যুশন থেকে পছন্দমতো প্যাটার্ন বেছে নিয়ে কিংবা পছদের ডিজাইনে এখন খুব সহজেই বদলে দিতে পারেন আপনার অন্দরমহল। তবে শুধু দেয়ালের ফ্লোরাল মোটিফ প্যাটার্নেই যে হবে না; হলুদ, কমলা, লাল, সবুজ বা কালচে লাল এসব রঙের ফ্লোরাল প্রিন্ট পর্দা, কুশন কিংবা বেডশিটও যে ডিজাইন করে নিতে পারেন। এক্ষেত্রে সোফার কভারের জন্য যেকোনো একক গাঢ় রঙের ফেব্রিক কিনতে পারেন। কেননা সব আবার ফ্লোরাল প্রিন্টের হলে দেখতে ভালো দেখাবে না। তবে দেয়ালে রঙের ব্যবহার পুরোপুরি ঘরের আকার-আকৃতি এবং আপনার ইচ্ছের উপর নির্ভর করবে। তাই, বুঝেশুনেই বেছে নিন পছন্দের ডিজাইন এবং রঙ। বসন্তে আপনার ঘর তবে সাজুক নতুন এক সাজে। বসন্তের রঙে আর ভালোবাসার ছোঁয়ায় ছিমছাম সুন্দর ঘরটি হয়ে উঠুক আপনার প্রিয় নীড়, ভালোবাসার একমাত্র ঠিকানা।

  •  
  •  
  •  
  •   

1 Comment

  1. Ali hassan mohammad shafi says:

    It’s very nice
    I think all person are like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *